এ জয় আমার নয়, এ জয় জনগণের: প্রধানমন্ত্রী

শেখ হাসিনা

খুলনার সময়: আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘এ জয় আমার নয়, এ জয় জনগণের। সুষ্ঠুভাবে নির্বাচনের আয়োজন করা হয়েছে। জনগণের ভোটাধিকার নিজেরা প্রয়োগ করেছে। তাদের দীর্ঘ সংগ্রামের ফসল। নির্বাচন যে নিরপেক্ষ হতে পারে সে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছি আমরা।’ দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় জনগণের বিজয় উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দেশের গণতন্ত্রের জন্য এ নির্বাচন একটি যুগান্তকারী ঘটনা। সোমবার বিকেলে গণভবনে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষক ও সাংবাদিকদের সঙ্গে সৌজন্য বিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী জানান, ’নির্বাচনে মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। প্রার্থী বাছাইয়ের পাশাপাশি মাঠ উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে নির্বাচনে। নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

এক বিদেশি সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ’স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলা নতুন সরকারের বড় লক্ষ্য উল্লেখ করে শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এছাড়া উন্নয়নশীল দেশের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকার সব ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।’ এসময় আওয়ামী লীগের সভানেত্রী বলেন, ’আমার চলার পথ কখনো নিরাপদ ছিল না। আমি যখন শান্তি সমাবেশ করি তখনও আমার ওপর গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। মানুষের অধিকার নিয়ে কথা বলতে গিয়ে কয়েকবার গ্রেপ্তার হয়েছি। আমার দলের নেতাকর্মীরা জীবন দিয়ে আমাকে রক্ষা করেছে।’ এসময় এক সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে শেখ হাসিনা বলেন, ’আমি খুবই সাধারণ নারী। আমি ইন্দিরা গান্ধীসহ অন্য নারী নেত্রীদের মত মহত নই। আমার দায়িত্ব মানুষের সেবা করা। মায়ের ভালোবাসা দিয়ে আমি দেশের মানুষের সেবা করতে অভ্যস্ত।’ ইউনূসকে ক্ষমা করার বিষয়ে আমার কাছে আসে না। এটি শ্রম আদালতের বিষয়। এ বিষয়ে আমার কিছু করার নেই বলে সাংবাদিককে জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী আরেক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ’যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কের কোন সংকট নেই। সম্পর্ক ভালো আছে, থাকবে। কিছু বিরোধী দল আসেনি। এমন হতেই পারে। আমি প্রতিশোধপরায়ণ নই।’ এসময় শেখ হাসিনা বলেন, ’সব দলের স্বাধীনতা আছে নির্বাচনে আসা না আসা নিয়ে। কোন দল নয়, নির্বাচনে জনগণের অংশ গ্রহণই জরুরি বিষয়। কয়েকটি দল না আসায় এটা বলা যাবে না নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হয়নি। যেসব দল নির্বাচনে আসেনি তারা সন্ত্রাস নাশকতা করে নির্বাচন বন্ধ করতে চেয়েছে। পারেনি। তাদের সন্ত্রাস গণতন্ত্র নয়। তারা গণতান্ত্রিক দল নয়, সন্ত্রাসী দল।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ’যারা নির্বাচনের সমালোচনা করছেন তাদের সমালোচনা করার অধিকার আছে। আমি মনে করি এবং বিশ্বাস করি নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ও সুষ্ঠু হয়েছে। কারা কি সমালোচনা করলো এটা তাদের নিজ নিজ বিষয়।’ বিদেশি পর্যবেক্ষক ও সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ’আপনাদের আগমনে আমাদের দেশের গণতন্ত্র আরও সুসংগঠিত হবে। আমি আমার দেশের জনগণ ও আমার পরিবারের পক্ষ থেকে আপনাদের ধন্যবাদ জানায়। এসময় আগত পর্যবেক্ষক ও সাংবাদিকদের গ্রাম ঘোরার আমন্ত্রণ জানান তিনি।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যদের পড়ার সুযোগ করে দিন।

আমাদের ফেসবুক পেজ

আজকের দিন-তারিখ

  • মঙ্গলবার ,রাত ২:৪১
  • ১৮ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ৪ আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  • ১২ জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন