কপোতাক্ষের স্বাভাবিক গতি ফিরিয়ে আনার দাবি

খুলনার সময়

নিজস্ব প্রতিনিধি: কপোতাক্ষ নদের স্বাভাবিক গতি ফিরিয়ে আনতে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের  দাবি জানিয়েছেন পরিবেশবাদী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। বিশ্ব নদী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত র‌্যালি শেষে আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, সরকার একের এক প্রকল্প গ্রহন করলেও কপোতাক্ষ নদকে প্রবাহমান করা যায়নি; বরং দখল ও দূষণে নদটি দিনে দিনে সংকুচিত হচ্ছে। এজন্য কপোতাক্ষ বাঁচাতে সরকারি-বেসরকারি সংস্থাগুলোর পাশাপাশি জনসাধারণকে সচেতন হতে হবে।

‘নদী একটি জীবন্ত সত্তা, আসুন এর অধিকার নিশ্চিত করি’ এই শ্নোগানকে সামনে রেখে আজ রবিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) খুলনার পাইকগাছায় অনির্বাণ লাইব্রেরি মিলনায়তনে এক কর্মসূচির আয়োজন করে ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশ, জাতীয় নদী জোট, সুন্দরবন ও উপকূল সুরক্ষা আন্দোলন এবং সচেতন সংস্থা। কর্মসূচির উদ্বোধন করেন অনির্বাণ লাইব্রেরির সাবেক সভাপতি সমীরণ দে। সচেতন সংস্থার সভাপতি বিদ্যুৎ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন মাহমুদকাটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নীলিমা ঢালী, হরিঢালী ইউনিয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মানিক ভদ্র, অনির্বাণ লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক প্রভাত দেবনাথ ও কল্যাণ সম্পাদক বাসুদেব ভদ্র, হরিঢালী ইউপি সদস্য স্মিতা মণ্ডল, সাবেক ইউপি সদস্য কুমারেশ দে ও ডা. সন্তোষ দাশ, পল্লী চিকিৎসক ডা. পিন্টু বিশ্বাস, উন্নয়ন কর্মী অমর ঘোষ, সুন্দরবন ও উপকূল সুরক্ষা আন্দোলনের সংগঠক রিয়াদ হোসেন, নদী কর্মী অসীম দেবনাথ ও আলাউদ্দিন মোড়ল।

বক্তারা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের পাশাপাশ দখল ও দূষণে সারাদেশের নদ-নদীগুলো মারা যাচ্ছে। এরপর অপরিকল্পিত শিল্পায়ন, আবাসন, সেতু ও কালভার্ট এবং অপরিকল্পিত চিংড়ি চাষের কারণে সুন্দরবন অঞ্চলের নদ-নদীর অস্তিত্ব বিলীন হতে চলেছে। এতে বাংলাদেশ একদিকে পরিণত হচ্ছে শুষ্ক ভূমিখণ্ডে, অন্যদিকে এসব মৃতপ্রায় নদ-নদীর পানি উপচে সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতার। ফলে সাধারণ মানুষের জীবনে ধেয়ে আসছে নানা ধরনের সংকট। এসময় তারা নদীসহ উপকূলের প্রাণ-প্রকৃতি সুরক্ষায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যদের পড়ার সুযোগ করে দিন।

আমাদের ফেসবুক পেজ

আজকের দিন-তারিখ

  • বুধবার ,বিকাল ৩:১৫
  • ২২ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  • ১৪ জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন