নয়-ছয় মানবো না আর, চাই জলবায়ু সুবিচার

সাতক্ষীরা প্রতীকী জলবায়ু ধর্মঘটে যুবরা ‘নয়-ছয় মানবো না আর, চাই জলবায়ু সুবিচার’

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: ‘নয়-ছয় মানবো না আর, চাই জলবায়ু সুবিচার’ এমনই স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত করে জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়েছে সাতক্ষীরার যুবরা। বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে সাতক্ষীরার ধুলিহর ব্রহ্মরাজপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় চত্বরে গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক এবং শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিম আয়োজিত প্রতীকী জলবায়ু যুব ধর্মঘটে অংশ নিয়ে শিক্ষার্থীরা এই দাবি জানায়।

এসময় ‘উপকূলের চিৎকার, চাই জলবায়ু সুবিচার’, ‘জলবায়ু সুবিচার এখনই দরকার’, ‘কার্বন-ডাই-অক্সাইডের বসবাস আমাদের সর্বনাশ’, ‘একটাই পৃথিবী, একটাই সুযোগ’ প্রভৃতি স্লোগান দেয় যুব শিক্ষার্থীরা। প্রতীকী এই ধর্মঘটে জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন ধুলিহর ব্রহ্মরাজপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী দীপ্তি মন্ডল, ফারজানা, আসমা উল হুসনা, তানজিলা খাতুন, খুশি দেবনাথ ও সহকারী শিক্ষক কনক মন্ডল।

শিক্ষার্থীরা বলেন, একটাই পৃথিবী, অতিভোগ বিলাসের মাধ্যমে সুন্দর এই পৃথিবীকে বিলুপ্ত করোনা। কার্বন দূষণের মাধ্যমে পৃথিবীর ধনী দেশের মানুষেরা বায়ুস্তর নষ্ট করে ফেলছে। ফলে পৃথিবীর সানস্ক্রিন বলে পরিচিত ওজোনস্তর নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এর ফলে ঘটছে জলবায়ু পরিবর্তন। এতে ডুবে মরছি আমরা। বাড়ছে লবণাক্ততা। সুপেয় পানির সংকট দেখা দিচ্ছে। ধ্বংস হচ্ছে প্রাণ বৈচিত্র্য। তৈরি হচ্ছে খাদ্য সংকট। কর্ম ও ঘরবাড়ি হারিয়ে বাস্তুহীন হয়ে পড়ছে মানুষ। আর নয় ছয় মানবো না। জলবায়ু সুবিচার নিশ্চিত করতে হবে। অধিক হারে কার্বন নিঃসরণকারী দেশগুলোকে জলবায়ু পরিবর্তনের দায় নিতে হবে। ন্যায্য ক্ষতিপূরণ প্রদান ও কার্বন নিঃসরণের হার কমাতে বাধ্য করতে হবে।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যদের পড়ার সুযোগ করে দিন।

খুলনার সময়

একটি সৃজনশীল সংবাদপত্র

আমাদের ফেসবুক পেজ

আজকের দিন-তারিখ

  • শনিবার ,রাত ১১:৪০
  • ২৫ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  • ১৭ জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন