সুন্দরবন সুরক্ষায় যুক্ত হলো আরও ৬ নৌযান

সুন্দরবন সুরক্ষায় যুক্ত হলো আরও ৬ নৌযান

সুন্দরবন সুরক্ষায় বন বিভাগের বহরে যুক্ত করা হলো আরও ছয়টি অত্যাধুনিক নৌযান। শনিবার (২ে৩ সেপ্টেম্বর) সকালে বাগেরহাটের মোংলা ফুয়েল জেটি এলাকায় বন ও জলবায়ু মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার বন কর্মকর্তাদের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে এসব নৌযানের চাবি হস্তান্তর করেন। এ সময় খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মিহির কুমার দো, সুন্দরবন ব্যবস্থাপনা দ্বিতীয় প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. আবু নাসের মোহসিন, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কাজী মুহুম্মদ নুরুল করিম, সুন্দরবন চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক রানা দেব, মোংলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাওলাদার আজাদ কবিরসহ বন বিভাগের কর্মকর্তা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। সুন্দরবন ব্যবস্থাপনা দ্বিতীয় প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. আবু নাসের মোহসিন বলেন, ব্রিটিশ আমল থেকে ১০০ বছর ধরে এমভি বন বিহারি ও এমভি বন বালা নামে দুইটি নৌযান ব্যবহার করে টহল কার্যক্রম পরিচালনা করতো বন বিভাগ। কিন্তু দীর্ঘদিন ওই দুইটি নৌযান নষ্ট হয়ে পড়ে রয়েছে। ফলে সুন্দরবন সুরক্ষায় দায়িত্ব পালনে ভোগান্তিতে পড়তে হতো তাদের। ওই ভোগান্তি দূর করতে একই সার্ভেতে একই নামে অনুমোদনের মাধ্যমে নতুন করে নৌযান দুইটি তৈরি করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি নৌযান পূর্ব সুন্দরবন বিভাগে আরেকটি সুন্দরবন পশ্চিম বিভাগে দেওয়া হবে। এ ছাড়া রয়েছে দুইটি ট্রলার ও দুইটি স্পিডবোট। যা একটি করে দুই রেঞ্জে ভাগ করে দেওয়া হবে। তিনি সুন্দরবন সুরক্ষা প্রকল্পে ৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয় সরকার। ওই প্রকল্পের আওতায় নতুন এসব নৌযান তৈরি করা হয়েছে। নৌযান ছয়টির মধ্যে আবাসন সুবিধা সম্পূর্ণ দুইটি বিলাসবহুল লঞ্চ, দুইটি ফাইবার বডির ট্রলার ও দুইটি দ্রুতগামী ওপেন টাইপ স্পিডবোট রয়েছে। যা সুন্দরবন ব্যবস্থাপনা সহায়ক দ্বিতীয় পর্যায় শীর্ষক কারিগরি প্রকল্পের আওতায় তৈরি হয়েছে।

পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যদের পড়ার সুযোগ করে দিন।

খুলনার সময়

একটি সৃজনশীল সংবাদপত্র

আমাদের ফেসবুক পেজ

আজকের দিন-তারিখ

  • মঙ্গলবার ,রাত ২:৩৯
  • ২৫ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ১১ আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  • ১৯ জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন